ভিডিও গ্যালারি
রবিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৭
  •   মুজাহিদ, সাকা চৌধুরীর রিভিউ আবেদন খারিজ: মৃত্যুদন্ড বহাল
  •   জর্ডানে দুই জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর
স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাবে যেসব খাবার
আইপোর্ট নিউজ:
Publish Date : 2016-11-15,  Publish Time : 20:55,  View Count: 401    6 months ago

স্ট্রোক সাধারণত ব্রেইন বা মস্তিষ্কে হয়ে থাকে। উচ্চ রক্তচাপ থেকেই স্ট্রোকের সম্ভাবনা দেখা দেয়।

স্ট্রোকের ফলে অনেকে প্যারালাইজড সমস্যায় ভোগেন। শরীরের কোনো একটি অঙ্গ বা পুরো শরীর প্যারালাইজড হয়ে যেতে পারে স্ট্রোকের ফলে। তবে এই স্ট্রোক থেকে বাঁচার জন্য আমরা কি করছি?

রক্তচাপ কম থাকলে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়। এছাড়া প্রতিদিনের খাবারের তালিকা গঠনের মাধ্যমে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমানো সম্ভব। অর্থাৎ এমন অনেক খাবার আছে যা খেলে স্ট্রোকের ঝুঁকি প্রায় ২৭ শতাংশ কমিয়ে ফেলা যায়। তাই আজই এই খাবারগুলো দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন আপনার খাবারের তালিকা এবং কমিয়ে ফেলুন স্ট্রোকের ঝুঁকি।

মাছ
হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুল প্রায় ১২ বছর ধরে ৫০০০ পূর্ণ বয়স্কদের নিয়ে একটি গবেষণা করে যাদের বয়স ৬৫ বছর অথবা তার বেশি। এই গবেষণায় দেখানো হয় যে, যারা সপ্তাহে অন্তত ৪ দিন মাছ খান তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি প্রায় ২৭ শতাংশ কম। যেসব মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা ৩ রয়েছে সেসব মাছ রক্তের প্রবাহ বাড়ায় এবং রক্তচাপ কমায়। আর খাদ্য তালিকায় বেশি পরিমাণে মাছ রাখা মানে লাল মাংসের জায়গা কমে যায়। যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো।

ওটমিল
রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেশি থাকলে তা রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়। তাই সর্বপ্রথম আপনার উচিত হবে রক্তে কোলেস্টেরল কমানো। তার জন্য ওটমিল বেশ ভালো। ওটমিলে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার থাকে যা ক্ষুধা মেটায় কিন্তু ক্যালরি বা কার্বো কম বাড়ায়। তাই স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে আপনি প্রতিদিন ওটমিল খেতে পারেন।

মিষ্টি আলু
মিষ্টি আলু প্রচুর পরিমাণে ফাইবারে ভর্তি একটি সবজি। রাতের খাবারে মিষ্টি আলু রাখাটা ভালো খাদ্য তালিকার প্রমাণ। এটি শরীরের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। প্রতি আধা কাপ মিষ্টি আলুতে ১.৮ গ্রাম দ্রাব্য আঁশ থাকে।

ব্লুবেরি
অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে সাহায্য করে। ব্লুবেরিও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ভালো উৎস। এটি ইনফ্লামেশন থেকেও রক্ষা করে শরীরকে। চেষ্টা করুন প্রতিদিন ৭ থেকে ১০টি ব্লুবেরি আপনার খাদ্য তালিকায় রাখার।

লো ফ্যাট দুধ
যুক্তরাষ্ট্রের পুয়ের্তো রিকান পুরুষের ওপর একটি গবেষণায় দেখা যায়, যারা প্রতিদিন দুধ খান তাদের স্ট্রোকের ঝুঁকির মাত্রা তুলনামূলক কম, যারা প্রতিদিন দুধ খান না তাদের থেকে। তাই বলে ফ্যাটযুক্ত দুধ খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। এতে করে শরীরের অন্য সমস্যা বেড়ে যেতে পারে। তাই চেষ্টা করুন প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় লো ফ্যাট দুধ রাখার।

কলা
একটি গবেষণায় দেখানো হয়, প্রতিদিন ১.৮ গ্রাম পটাশিয়াম খেলে তা ২৮ শতাংশ স্ট্রোকের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়। আর পটাশিয়ামের ভালো উৎস হল পাকা কলা। তাই স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে চাইলে প্রতিদিনের খাবারের সঙ্গে কলা রাখুন ফল হিসেবে।

পুঁইশাক
পুঁইশাকে প্রচুর পরিমাণ ম্যাগনেসিয়াম ভিটামিন বি (ফলেট) এবং ফলিক এসিড রয়েছে, যা ২০ শতাংশ স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। এছাড়া প্রায় দশ হাজার পূর্ণ বয়স্ক মানুষের ওপর করা ২০ বছরের একটি গবেষণা থেকে বলা হয়, প্রতিদিন প্রায় ২০০ মাইক্রোগ্রাম ফলেট ভিটামিন অনেকাংশে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।

বাদাম
বলা হয় প্রতিদিন এক মুষ্টি বাদাম আপনাকে কোলেস্টেরল থেকে দূরে সরিয়ে রাখে। তাই কয়েক ধরনের বাদাম মিলিয়ে প্রতিদিন অন্তত এক মুঠ বাদাম খাওয়ার চেষ্টা করুন। কারণ আপনার কোলেস্টেরল যত কম থাকবে, রক্তচাপও ততটাই কম থাকবে। আর রক্তচাপ কম থাকলে স্ট্রোকের ঝুঁকির পরিমাণও কম থাকবে।

তথ্যসূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট










ইনফরমেশন পোর্টাল অব বাংলাদেশ (প্রা.) লিমিটেড -এর চেয়ারম্যান সৈয়দ আবিদুল ইসলাম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ রওশন জামান -এর পক্ষে সম্পাদক কাজী আব্দুল হান্নান  ও উপদেষ্টা সম্পাদক সৈয়দ আখতার ইউসুফ কর্তৃক প্রকাশিত ও প্রচারিত
ইমেইল: info@iportbd.com, বার্তা বিভাগ: newsiport@gmail.com