Tuesday, 22 October, 2019, 12:34 AM
Home বিবিধ
ঢাকায় আটক স্পাইডারম্যান চুরিবিদ্যায় দক্ষ
আইপোর্ট রিপোর্ট
Published : Thursday, 22 November, 2018 at 7:15 PM, Count : 0

যেকোনো উঁচু ভবন বেয়ে স্পাইডারম্যানের মতই উঠে যেতে পারেন তিনি। ১০ তলা উচ্চতার ভবনে উঠতে রাজুর এক টুকরো দড়িরও প্রয়োজন হয় না। পাশাপাশি দুটি সুউচ্চ ভবন হলে তো কথাই নেই। রাজু এসব ভবনের স্যানিটারি পাইপ, পানির পাইপ বা সানশেড বেয়ে উঠে যেতে পারেন দ্রুতগতিতে। ভবনে উঠে কোনো ফ্লোরের একটি জানালা খোলা পেলে বাড়তি সুবিধা। ১০ ইঞ্চির মতো ফাঁকা হলেই পুরো শরীরটাকে বিড়ালের মতো চিকন করে ফেলেন রাজু। ঘরে ঢুকে সব জিনিসপত্র নিজের করে নেন তিনি। আর বন্ধ থাকলেও গ্রিল কেটে ফেলেন রাজু।

এমনই এক ‘পাক্কা চোরের’ নাম মো. সগির ওরফে রাজু (২৭)। হালকা-পাতলা গড়ন। শারীরিক এই গড়নকে চুরিবিদ্যায় ভীষণ দক্ষতায় কাজে লাগিয়েছেন রাজু। তিনি দিনে ঘুমান, আর রাতে গ্রিল কেটে চুরি করেন।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) সূত্র জানায়, রাজুর ওস্তাদ মো. হজরত আলী ওরফে রকি। আরেক সঙ্গী মো. শাহিন (২৫)। রাজুসহ তিন চোরের দলকে ২০ নভেম্বর রাত সোয়া ১১টার দিকে মিরপুরের মণিপুর এলাকার মণিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে পিবিআইয়ের একটি দল। তাঁদের কাছ থেকে ল্যাপটপ, কম্পিউটার হার্ডডিস্ক, মোবাইল ফোনসহ বেশ কিছু চোরাই পণ্য উদ্ধার করা হয়। পিবিআইয়ের তিন পরিদর্শক মনিরুল ইসলাম, জুয়েল মিয়া ও হুমায়ুন কবির মোল্লা এবং উপপরিদর্শক ফরিদউদ্দিন বিশেষ এ অভিযানে অংশ নেন।

পরিদর্শক জুয়েল মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ২০১২ সাল থেকে রাজধানীর বাসাবাড়ি থেকে মালামাল চুরির সঙ্গে জড়িত এই দল। দলের প্রধান হলেন হজরত আলী ওরফে রকি। রাজুকে লালনপালন করেন রকি। তাঁর আরেক সহকারী শাহিন। রাজুকে সাভারের আমিনবাজারের কাউন্দিয়া এলাকার একটি বাসা ভাড়া করে থাকতে দেন রকি। কাউন্দিয়ায় যাতায়াতের জন্য নৌকায় করে তুরাগ নদ পারাপার করতে হয়। রাজু সারা দিন নিজের বাসায় ঘুমিয়ে থাকেন। রাতে জেগে থাকেন। প্রতিদিন রাতে কাউন্দিয়া ঘাট পারাপার হন তিনি। শাহিনের মাধ্যমে বাড়ির খোঁজ করে চুরি করতে নেমে পড়েন। চুরি করে মোবাইল, ল্যাপটপ, গয়না বা টাকা যা–ই পাওয়া যাক না কেন, সবই তুলে দেন ওস্তাদ রকির হাতে। রকি এসব চোরাই পণ্য ঢাকার বিভিন্ন অভিজাত বিপণিবিতানে কম দামে বিক্রি করেন তিনি।

২২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে পিবিআইয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ১৪ অক্টোবর মিরপুরের বড়বাগ এলাকার ফরিদ উদ্দিন আহমেদ নামে এক ব্যক্তির বাসার গ্রিল কেটে একটি অ্যাপল (ম্যাক বুক), একটি আসুস ল্যাপটপ, একটি স্যামসাং নোট-৫ মোবাইল ফোন, একটি স্যামসাং এস-৬ মোবাইল ফোন, একটি পোর্টেবল হার্ডডিস্ক, নগদ পাঁচ হাজার টাকাসহ মোট আড়াই লাখ টাকার মালামাল চুরি হয়। এ ঘটনায় ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বাদী হয়ে মিরপুর মডেল থানায় মামলা করেন। মামলাটির তদন্তে তিন চোরের চক্রটির সন্ধান পাওয়া যায়।







« PreviousNext »

সর্বশেষ
অধিক পঠিত
এই পাতার আরও খবর
ইনফরমেশন পোর্টাল অব বাংলাদেশ (প্রা.) লিমিটেড -এর চেয়ারম্যান সৈয়দ আবিদুল ইসলাম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ রওশন জামান -এর পক্ষে সম্পাদক কাজী আব্দুল হান্নান  ও উপদেষ্টা সম্পাদক সৈয়দ আখতার ইউসুফ কর্তৃক প্রকাশিত ও প্রচারিত
ইমেইল: [email protected], বার্তা বিভাগ: [email protected]