Thursday, 26 November, 2020, 1:24 PM
Home
গাড়ি রেখে গেলাম,আমাকে খোঁজার চেষ্টা করবেন না
আইপোর্ট নিউজ:
Published : Tuesday, 11 April, 2017 at 12:41 AM, Count : 42
শুল্ক গোয়েন্দাদের চিঠি লিখে রাজধানীর হাতিরঝিলে ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে আনা নিজের বিলাসবহুল পোরশে গাড়ি ফেলে রেখে গেলেন মালিক। চিঠিতে তিনি লিখেছেন- ‘গাড়িটি রেখে গেলাম, আপনারা আমাকে খোঁজার চেষ্টা করবেন না।’

সোমবার সকালে হাতিরঝিল থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ওই পোরশে গাড়িটি উদ্ধার করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অ‌ধিদফতর। গাড়ির ড্রাইভারের সিট থেকে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অ‌ধিদফতরের ডিজি বরাবর লেখা ওই চিঠিটি পাওয়া যায়।

নিজের নাম প্রকাশ না করে লেখা ওই চিঠিতে গাড়ির মালিক লিখেছেন, ‘আমি বিগত কয়েক বছর ধরে এই গাড়ি ব্যবহার করছি। গাড়িটি আমার অনেক প্রিয় ও আবেগের। সম্প্রতি আমি জানতে পারি এই গাড়িটিতে ট্যাক্স ফাঁকি দেয়া হয়েছে। আমি সমাজের সম্মানী ব্যক্তি। আমাকে অনেকে এক নামে চিনে। মানসম্মানের কথা ভেবে আমি নিজের ইচ্ছায় গাড়িটি ফেলে রেখে গেলাম। দয়া করে আমাকে আপনারা খোঁজার চেষ্টা করবেন না। সারা দেশব্যাপী পরিচালিত আপনাদের অভিযানগুলোর আমি প্রশংসা করছি। আমার অতি প্রিয় এই গাড়িতে ট্যাক্স ফাঁকি দিয়ে অন্যায় করলেও এটি জমা দেয়ার মাধ্যমে আমি সেটি প্রায়শ্চিত্ব করলাম।’

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অ‌ধিদফতরের মহাপ‌রিচালক (ডি‌জি) ড. মঈনুল খান জানান, ‘শুল্ক গোয়েন্দার দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল থেকে ফেলে যাওয়া গাড়িটি উদ্ধার করেছে। গাড়ির চাবি ভেতরে পাওয়া গেছে। ড্রাইভারের সিটে একটি চিঠিও পাওয়া গেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গাড়িটি শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা হয়েছে। কে বা কারা এটি ফেলে রেখে গেছেন তা খতিয়ে দেখা হ‌চ্ছে।’

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের উপপরিচালক শরীফ আল হাসান বলেন, ‘পোরশে কায়ানে ৯৫৫ মডেলের গাড়িটি ২০০৫ সালে তৈরি। ২০১০ সালে এটি বাংলাদেশে আনা হয়। কারনেট সুবিধায় গাড়িটি আনা হয়েছিল। তবে রেজিস্ট্রেশন করা হয়নি এটি। গ্যারেজ নম্বরে গাড়িটি চলছিল। গাড়ির ইঞ্জিন নম্বর যাচাই করে জানা যায় যে এটি ২০১০ সালে ইংল্যান্ডপ্রবাসী ফরিদা রশিদ নামের এক নারী চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। শুল্কসহ গাড়িটির মূল্য চার কোটি টাকা।’









« PreviousNext »

সর্বশেষ
অধিক পঠিত
এই পাতার আরও খবর
ইনফরমেশন পোর্টাল অব বাংলাদেশ (প্রা.) লিমিটেড -এর চেয়ারম্যান সৈয়দ আবিদুল ইসলাম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ রওশন জামান -এর পক্ষে সম্পাদক কাজী আব্দুল হান্নান  ও উপদেষ্টা সম্পাদক সৈয়দ আখতার ইউসুফ কর্তৃক প্রকাশিত ও প্রচারিত
ইমেইল: [email protected], বার্তা বিভাগ: [email protected]